1. me@thedailynews.online : https://www.thedailynews.online/wp-admin/ https://www.thedailynews.online/wp-admin/ : https://www.thedailynews.online/wp-admin/ https://www.thedailynews.online/wp-admin/
  2. info@www.thedailynews.online : The Daily News :
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
মডার্ন হজ্জ ট্রাভেলস এর ৩ দিন ব্যাপী হজ্জ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত বাংলা নববর্ষে বাইডেনের শুভেচ্ছা চালের বস্তায় জাত ও মূল্য লেখা বাধ্যতামূলক ঈদ উপলক্ষে কালিয়াকৈরে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী সর্দারবাড়ী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত কালিয়াকৈরে অধ্যক্ষকে পূনর্বহাল করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত পাটের নতুন নতুন পণ্য উৎপাদন ও নতুন বাজার খোঁজার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বামীর শেষ ইচ্ছা পূরণ করতে মসজিদ নির্মাণ করলেন স্ত্রী হাজী নাসরিন জাহান জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট দিলেন প্রয়াত আলোকচিত্র শিল্পী লুৎফর রহমানের স্ত্রী কামরুননেসা। জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা শাখার পর্যবেক্ষণে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। বর্ণিল আয়োজনে আরাফের তৃতীয় জন্মবার্ষিকী পালিত

আজ ফেঞ্চুগঞ্জ মুক্ত দিবস।

  • প্রকাশিত: সোমবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৬৯ বার পড়া হয়েছে

 

মোঃ জহিরুল ইসলাম বাবলু, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি:

আজ ফেঞ্চুগঞ্জ মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ১১ই ডিসেম্বরের এই দিনে পাক হানাদার বাহিনীর কবল থেকে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলাকে মুক্ত করা হয়। সাথে সাথে উত্তোলন করা হয় লাল সবুজের পতাকা। জাতীয় পতাকা উওোলনোর মাধ্যমে পাক হানাদার মুক্ত হয় সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা। সেই থেকে ১১ ডিসেম্বরকে ফেঞ্চুগঞ্জ মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করা হয়। 

মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত বিজয়ের পূর্বক্ষণে ১৯৭১ সালের ১১ ডিসেম্বর ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার রাজনপুর এলাকায় অবস্থানরত পাকবাহিনীর যুদ্ধ সামগ্রী পুড়িয়ে দেয় মুক্তিযোদ্ধারা। সেই সাথে মুক্তিবাহিনী ও মিত্রবাহিনী মিলে পাকবাহিনীর উপর সম্মুখ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে। ফেঞ্চুগঞ্জ কুশিয়ারা রেলব্রিজের উত্তর পাশে মুক্তি বাহীনি ও দক্ষিণ পাশে পাক বাহিনী সম্মুখ যুদ্ধ হয়।  এতে বেশ কিছু পাক সেনা মারা যায়। শহীদ হন কয়েক জন মুক্তিযোদ্ধা। তাতে থেমে থাকেনি যুদ্ধ, এক পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধা ও মিত্রদের সঙ্গে সম্মুখযুদ্ধে ঠিকতে না পেরে পাকসেনারা স্থানীয় মল্লিকপুর রাস্তা দিয়ে ইলাশপুর হয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ ছেড়ে সিলেটের দিকে পালিয়ে যায়।
অর্জিত হয় আমাদের বিজয়। স্বাধীন বাংলার পতাকা নিয়ে বীরের বেশে আসতে থাকেন মুক্তি যোদ্ধারা। তাদের বরণ করতে রাস্তায় রাস্তায় জড়ো হয় মুক্তিপাগল জনতা, স্লোগানে স্লোগানে মখরিত হয় গোটা ফেঞ্চুগঞ্জ।
এই ব্যাপারে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও মোক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেন, ফেঞ্চুগঞ্জে ভয়াবহ যুদ্ধ হয়েছে। সেই যুদ্ধে অনেক মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয়েছেন, কৌশল যোদ্ধের কাছে পাকবাহিনী পরাজিত হয়ে আন্তসমর্পন করে। অর্জিত হয় আমাদের স্বাধীনতা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
  • © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট